করোনারোগীদের দুর্ভোগ দূর করুন - বিডি বুলেটিন করোনারোগীদের দুর্ভোগ দূর করুন - বিডি বুলেটিন

শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
কোস্টগার্ডের অভিযানে ৫শ কেজি জেলি পুশকৃত চিংড়ি জব্দ, চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা মোংলার প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা নিজেই করোনায় আক্রান্ত! রায়ের একদিন পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি সৈয়দপুরে গ্রেপ্তার আগামী ৫ বছরে নতুন করে ১০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা হবে: পলক প্রাণ ভিক্ষা চেয়েও পাননি, মা-বাবার সামনেই সন্তানকে পিটিয়ে হত্যা সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত চরফ্যাশনে প্রতিপক্ষের হামলায় একই পরিবারের নারী-পুরুষ সহ আহত ৫ কুয়াকাটায় অপরাধ প্রবণতা নির্মূলে জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভা বাউফলে গ্রামীণফোনের মেশিন রুমের ২২ লাখ টাকার মালামাল চুরি সুন্দরবনে কোস্টগার্ডের অভিযানে গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
করোনারোগীদের দুর্ভোগ দূর করুন

করোনারোগীদের দুর্ভোগ দূর করুন

Print Friendly, PDF & Email

এটা খুবই স্বস্তির বিষয় যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও সন্দেহভাজন রোগীদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

গতকাল শনিবার থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের ভর্তি কর্যক্রম শুরু হয়েছে। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে করোনা সাসপেক্টেড ও আক্রান্ত রোগীদের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

বার্ন ইউনিটে মোট ৩০০ বেড রয়েছে। আইসিইউ (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট), এইচডিইউ ইউনিট (হাইডিপেন্ডেন্সি) প্রস্তুত করা হয়েছে। রোগী ধীরে ধীরে বাড়ছে। বার্ন ইউনিটের সাথে সাথে ঢামেক হাসপাতালের নতুন ভবনও প্রস্তুত করা হবে। চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারী যারা রয়েছেন তাদের সুরক্ষার জন্য আবাসিক হোটেল ঠিক করা হয়েছে। যারা ডিউটি করবেন তারা হাসপাতাল থেকে সরাসরি হোটেলে গিয়ে উঠবেন।

করোনা শনাক্ত ছাড়া শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া, করোনা সাসপেক্ট রোগীদের মধ্যে পজিটিভ এলে তাদের আলাদা করে চিকিৎসা দেয়া হবে। এছাড়া এখন থেকে করোনা পরীক্ষার স্যাম্পল ঢামেক হাসপাতাল বার্ন ইউনিট থেকেই সংগ্রহ করা হবে, যা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।

গতকাল পর্যন্ত ৩২ জনের মতো রোগী ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। ইতোমধ্যে আট হাজার ৭৯০ জন শনাক্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১৭৫ জন। এ অবস্থায় করোনা আক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসা পেতে হিমশিম খাচ্ছে। বিশেষায়িত তিনটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল।

তিনটি অভিজাতসহ আরও কয়েকটি হাসপাতালকে চিকিৎসা ও পরীক্ষার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। কিন্তু রোগীর তুলনায় তা পর্যাপ্ত নয়। এ জন্য করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা নিশ্চিতের জোর দাবি উঠছিল।

করোনাভাইরাস অত্যন্ত ছোঁয়াচে। এ কারণে আক্রান্ত রোগীদের দুর্ভোগের কোনো শেষ নেই। তাছাড়া আক্রান্তদের বাঁকা চোখে দেখা হয়, যদিও এটি মোটেও উচিত নয়। এ অবস্থায় করোনারোগীদের চিকিৎসার দ্বার অবারিত করতে হবে। আক্রান্তরা যেন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারে সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

 330 total views,  1 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018