কুসিক মেয়রের রেফারেন্সে রাজশাহী এলো ৫২ কেজি গাঁজা! - বিডি বুলেটিন কুসিক মেয়রের রেফারেন্সে রাজশাহী এলো ৫২ কেজি গাঁজা! - বিডি বুলেটিন

শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
সরকারের গ্যাস বিল বাকি ৯ হাজার কোটি টাকার বেশি ইউপি সদস্য হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি ২০ জানুয়ারি আসছে অক্সফোর্ডের ২০ লাখ টিকা আগৈলঝাড়ায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সচেতনতামূলক র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে আগৈলঝাড়ায় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন উজিরপুরে বামরাইল ও শোলক ইউনিয়নের সীমানা নিয়ে চরম উত্তেজনা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা গলাচিপায় তিন নারীর অসহায়ত্ব জীবন যাপন শোক সংবাদ দ্রুতগামীযান ব্যবহার করে দ্রুততম সময়ে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে হবে: বিএমপি কমিশনার মেহেন্দিগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় আওয়ামীলীগ নেতার মৃত্যু
কুসিক মেয়রের রেফারেন্সে রাজশাহী এলো ৫২ কেজি গাঁজা!

কুসিক মেয়রের রেফারেন্সে রাজশাহী এলো ৫২ কেজি গাঁজা!

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) মেয়রের রেফারেন্সে রাজশাহী এলো ৫১ কেজি ৯০০ গ্রাম গাঁজা। সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আসবাবপত্রের ভেতরে মাদকের এই চালান এসেছে।

সোমবার (৩১ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর বোয়ালিয়া থানা মোড়ে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের ডেলিভারি কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে পুরো গাঁজার চালানটি আটকে দেয় র‍্যাব-৫ এর রাজশাহীর মোল্লাপাড়া ক্যাম্পের একটি দল। এ ঘটনায় ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আটকরা হলেন- রাজশাহীর পবা উপজেলার দুয়ারী গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে দুলাল (৩০), তানোরের দেউরাতলা গ্রামের ফজর আলীর ছেলে তোফাজ্জল হোসেন (২৪), একই উপজেলার সেদায়ের এলাকার মৃত আফসার আলীর ছেলে বাদশা (৩২), সিধাইড় গ্রামের মেরাজ উদ্দিনের ছেলে সোহান আলী (২১), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা থানার বেলতলি এলাকার সুলতান আহমেদের ছেলে মুকতুল হোসেন (৩২) এবং একই থানার মাদলা এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে বাপ্পি (৩০)।

র‍্যাব জানায়, গত ২৮ আগস্ট কুমিল্লায় কিছু আসবাবপত্র বুকিং দেয়া হয়। রাজশাহীর হুমায়ুন কবীর নামে এক ব্যক্তির জন্য মুকতুল হোসেন সেগুলো বুকিং করেন। সোমবার সকালে ছয়জন মালামাল নিতে এলে তারা একে একে র‍্যাবের জালে আটকা পড়েন। এ সময় র‍্যাব একটি খাটের বক্সের ভেতর লুকানো ১৮টি প্যাকেটে ৫১ কেজি ৯০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করে।

এসব আসবাবপত্র বুকিংয়ের সময় রেফারেন্স হিসেবে ‘মেয়র, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন’ লেখা হয়েছিল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র মনিরুল হক বলেন, বিষয়টি শুনলাম। কে পাঠিয়েছে সেটা তো বলতে পারব না। কুরিয়ার সার্ভিস তো আর যাচাই করে না। বুকিংয়ের সময় যে কেউ যে কারও নাম রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করতে পারে। এটা মাদক ব্যবসায়ীদের কৌশল। যারা গ্রেফতার হয়েছে তারাই এ বিষয়ে বলতে পারবে।

 182 total views,  1 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018