চরফ্যাশনে জমি দখলের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ - বিডি বুলেটিন চরফ্যাশনে জমি দখলের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ - বিডি বুলেটিন

মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৩:৩৮ অপরাহ্ন

চরফ্যাশনে জমি দখলের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

চরফ্যাশনে জমি দখলের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি ॥
চরফ্যাশনে জমি বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ ভূমি দস্যুদের হামলা মামলার শিকার হয়ে সর্ব শান্ত একটি অসহায় পরিবার। ভোগ দখলীয় ধানী জমি দখলে নিতে একের পর এক হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে ভূমিদস্যু প্রতারক মাহে আলম। এমনি ঘটনাটি ঘটেছে চরফ্যাশনের শশীভূষণ থানাধীন হাজারীগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার বাড়িতে। মিথ্যা মামলায় জর্জরিত নিরুপায় হয়ে অসহায় পরিবারের ছেলামত হাওলাদারের ছেলে ফয়জুল্যাহ নাগর গতকাল ২৫ মার্চ সংবাদকর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হাজারীগঞ্জ ৩নং ওয়ার্ড ছালামত হাওলাদারের ছেলে ফয়জুল্যাহ হাওলাদারের ভোগ দখলী ৬৪ শতাংশ ধানী জমি দীর্ঘদিন ভোগবান দখলকার নিযুক্ত আছেন। যার খতিয়ান নং- ৩৬৫, ৬৪৪। এই জমি জবর দখল করতে কু-দৃষ্টি পড়ে একই এলাকার বাসিন্দা ভূমিদস্যু নামে খ্যাত মোফাজ্জল হোসেন বেপারীর ছেলে মাহে আলমের। জমি জবর দখল করতে ভুয়া কাগজপত্র সৃজন করে দখলে ব্যর্থ হয়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ইং তারিখে শশীভূষণ থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করে। মামলায় তার ছোট ভাই ফরিদ উদ্দিনকে বাদী করে নাগরসহ ১৫জনকে আসামী করে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ৩২/২০১৯। ওই মামলায় পুলিশ ফয়জুল্যাহ, ছলেমান ভুট্টো ও রিয়াজকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। তারা জামিনে এসে ধার্য তারিখে হাজিরা দিলে বিজ্ঞ আদালত বাদির সনদপত্র দাখিল করতে আদেশ দেন। আদেশ মোতাবেক হাসপাতাল থেকে সরকারি নিয়মানুযায়ী জখমী সনদপত্র আদালতে দাখিল হয়। যার নং- ৩৫, তাং- ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। দাখিলকৃত সনদটি আদালত থেকে গায়েব করে ভুয়া বানোয়াট হুবহু আরেকটি জখমী সনদ দাখিল করে আসামীদের বিরুদ্ধে জামিন নামঞ্জুর করার চেষ্টা করেন। বিজ্ঞ আদালত জখমি সনদপত্রটি ভুয়া সন্দেহ হলে মামলার আইও ও কর্তব্যরত চিকিৎসককে স্ব-শরীরে হাজির হওয়ার জন্য আদেশ দেন। ধার্যকৃত তারিখ আগামী ২০ এপ্রিলকে সামনে রেখে এলাকার বিভিন্ন নেতাকর্মীদের দিয়ে ভূমিদস্যু মাহে আলম দখলকৃত জমি থেকে সরে দাড়াতে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে ফয়জুল্যাহ গংকে। বর্তমানে ফয়জুল্যাহ ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।
এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী ফয়জুল্লাহ নাগর জানান, ইতোপূর্বে এ মাহে আলম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে চাকুরি করতেন। চাকুরিকে পুজি করে সে ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে বিভিন্ন চরাঞ্চলের জমি দখলে মেতে ওঠেন। এমনকি গত কয়েক বছর আগে চরফ্যাশন উপজেলা ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর নিকট মাহে আলম নিজেকে জেলা প্রশাসক হিসেবে মোবাইলে পরিচয় দিয়ে সুবিধা বাগিয়ে নেয়ার চেষ্টাকালে অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় জেল হাজতে যেতে হয়। ওই ঘটনা সহ আরো অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকায় জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে তাকে চাকুরিচ্যুত করা হয়। একের পর এক প্রতারণার মাধ্যমে চরাঞ্চলের জমি জমা দখলে এলাকাবাসী এখন অতিষ্ট। এলাকাবাসী এখন প্রতারণার হাত থেকে বাচতে প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করছে।
অভিযুক্ত প্রতারক মাহে আলমের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

 453 total views,  3 views today

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018