চরফ্যাশন চেয়ারম্যান প্রার্থী দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক - বিডি বুলেটিন চরফ্যাশন চেয়ারম্যান প্রার্থী দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক - বিডি বুলেটিন

রবিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২০, ০৯:০১ পূর্বাহ্ন

চরফ্যাশন চেয়ারম্যান প্রার্থী দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

চরফ্যাশন চেয়ারম্যান প্রার্থী দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

শাহাবুদ্দিন সিকদার, চরফ্যাশন(ভোলা) প্রতিনিধি:
চরফ্যাশন উপজেলা দুলারহাট থানার নুরাবাদ ইউনিয়ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীক ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর দুই চেয়ারম্যান গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে দুলাহাট থানার ৬পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। দায়িত্বরত রির্টানিং অফিসার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দু’প্রাথীকে তিন দিনের মধ্যে জবাব চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় থেকে ১১টায় পর্যন্ত দফায় দফায় দুলারহাট বাজারের এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহদেরকে স্থানীরা উদ্ধার করে চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।
উভয় গ্রুপের গুরুতর আহত তিন জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল সেবাচিমে প্রেরণ করা হয়েছে। আহতরা হলেন- দুলারহাট থানা যুবলীগ আহবায়ক ইউসুফ পন্ডিত(৪০),যুগ্ন আহবায়ক আবুল বাশার পন্ডিত(৪০),মোস্তাফ হাওলাদার(৫০),যুবলীগ নেতা ফারুক মাষ্টার(৩৮), ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম কাজী(৩০),প্রার্থীর বড় ভাই হাফেজ জামাল উদ্দিন(৫০),নুরাবাদ ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ সভাপতি আবুল বাসার বাসু(৪০),সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ রাজ্জাক(৩৫), মো. রুবেল(২৪), মো. নুুরুল ইসলাম চকিদার(৫২), স্বপন(২৪),ইউনিয়ন কৃষকলীগ সহ-সভাপতি আবুল হাসেম কাদী(৫৫),জসিম উদ্দিন(২৮)মো. শাহাবুদ্দিন (৩৫), রাকিব হাসান(৩২)সহ অনেকে। এদিকে দুলারহাট থানা ওসির দাবী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে আমাদের ৬পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তাদের অবস্থা আশংকাজনক। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে বরিশাল প্রেরণ করা হয়।
স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ১০টায় নৌকা প্রতিকের প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান এর কর্মীদের হাতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস মার্কার প্রতিক আনোয়ার হোসেন এর কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠে। এর সূত্র ধরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরা প্রতিপক্ষদেরকে দুলারহাট থানা বাজার থেকে ধাওয়া দিলে প্রতিপক্ষ গ্রুপ লাঠি সোঠা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পাল্টা ধাওয়া করলে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়।
এব্যাপারের নৌকার প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন দুলারহাট থানা বাজারের আমার দলীয় অফিস কক্ষে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উপর বিনা উস্কানিতে হামলা চালায়। স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বলেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় আমার দু’জন মহিলা কর্মী প্রতিপক্ষ প্রার্থীর ৩নং ওয়ার্ডে ভোট চাইতে গেলে তাদের উপর হামলা করে। আমি শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেলে আমার উপরেও হামলা চালায়। ওই ওয়ার্ডে ইয়াবা, গাঁজা সেবনকারী ও সন্ত্রাসীদেরকে তিনি (আমার প্রতিপক্ষ মোস্তাফিজ) লালন-পালন করেন। দুলারহাট থানা ওসি মিজানুর রহমান পাটওয়ারী বলেন, দু’গ্রু নির্বাচনী সহিংসতা নিয়ন্ত্রণে রাখতে আমাদের চেষ্টার কোন ত্রুটি ছিলো না।
ইউনিয়ন নির্বাচন রির্টানিং অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, সহিংসতার ঘটনাকে কেন্দ্র করে নৌকা প্রতিকের মোস্তাফিজুর রহমান ও আনারস প্রতিকের আনোয়ার হোসেনকে কারণ দর্শাণোর নোটিশ করা হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।
চরফ্যাশন উপজেলা নিবাহী কর্মকর্র্তা মো. রুহুল আমিন বলেন, সহিংসতার কথা শুনে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। ঘটনাস্থল এখন (বিকেল সাড়ে ৪টা) শান্ত পরিবেশে বিরাজমান।

231 total views, 4 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018