চীন থেকে আসা ছাত্রকে নিয়ে করোনাভাইরাসের গুজব - বিডি বুলেটিন চীন থেকে আসা ছাত্রকে নিয়ে করোনাভাইরাসের গুজব - বিডি বুলেটিন

শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে তারুণ্যের শপথ আগৈলঝাড়ায় অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই কোন শহীদ মিনার সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় বিআরইউ’র নিন্দা ও প্রতিবাদ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপিকে আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের কমিটির পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির আয়োজনে ২ দিন ব্যাপি ভাষা স্মারক ও সাহিত্য প্রদর্শণীর উদ্বোধন আগৈলঝাড়ায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে সড়কে প্রাণ গেল স্ত্রীর, স্বামী হাসপাতালে সিএএ মুসলিমদের জন্য ব্যাপক বঞ্চনা তৈরি করবে : যুক্তরাষ্ট্র অস্কার জিতলেন সাকিব! নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে তারুণ্যের শপথ
চীন থেকে আসা ছাত্রকে নিয়ে করোনাভাইরাসের গুজব

চীন থেকে আসা ছাত্রকে নিয়ে করোনাভাইরাসের গুজব

বরিশাল:

বরিশালের গৌরনদীতে চীন থেকে নিজ বাড়িতে আসা এক শিক্ষার্থীকে নিয়ে করোনাভাইরাসের গুজব ছড়ানো হয়েছে। তবে স্থানীয় থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে বিষয়টি যে গুজব তা এরইমাঝে প্রমাণিত হওয়ার পাশাপাশি স্থানীয়রাও আশ্বস্ত হয়েছেন। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার বানীয়াশুরী গ্রামের বাদামতলা এলাকার। চীন ফেরত মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হেলাল সিকদার (২৬) ওই গ্রামের জালাল সিকদারের পুত্র। জানাগেছে, সে গত একবছর পূর্বে তিনি চীনে ডাক্তারি পড়ার জন্য গিয়েছিলেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার ভোরে হেলাল সিকদার চীন থেকে নিজ বাড়িতে আসেন। কোন এক কারণে হেলাল আসার পর তার বাবা, মা, বোনসহ অন্যান্য সদস্যরা বাড়ি থেকে অন্যত্র চলে যায়। বিষয়টি রবিবার সন্ধ্যার পরে এলাকায় জানাজানি হলে করোনাভাইরাসের গুজব ছড়িয়ে পরে। একপর্যায়ে হেলাল সিকদারের মা তার ছেলের ঘরে প্রবেশ করেন। রবিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে হেলাল সিকদার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, তার করোনাভাইরাস নেই। যেহেতু তিনি চীন থেকে এসেছেন তাই চিকিৎসকদের পরামর্শে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য তিনি তার পরিবারের সদস্যদের অন্যত্র সরিয়ে দিয়েছেন। তিনি আরও জানান, চীন থেকে নিজ খরচে ফেরার পথে চারটি স্থানে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষাসহ বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষা ও স্ক্যান করা হয়েছে। এছাড়াও তাকে কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থায় স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ১৪ দিন রাখা হয়েছিলো। এতে তার শরীরে করোনাভাইরাসের কোন আলামত পাওয়া যায়নি। বাংলাদেশে পৌঁছার পরেও তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। এতেও তার শরীরে কোন করোনাভাইরাসের লক্ষন পাওয়া যায়নি। তার পরেও তাকে বিষশজ্ঞ চিকিৎসকেরা বিশ্রামের জন্য ১৪দিন পরিবারের সদস্যদের থেকে আলাদা থাকতে বলেছেন। এ ব্যাপারে গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম ছরোয়ার বলেন, বিষয়টি রবিবার রাতে শোনার পরেই চিকিৎসকদের সাথে আলোচনা করে ঘটনাস্থলে পুলিশ সদস্যদের পাঠানো হয়েছে। তারা চীন ফেরত ওই ছাত্রের সাথে কথা বলে ও তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার সকল কাগজপত্র এনে চিকিৎসকদের দেখানো হয়েছে। তবে করোনাভাইরাসের কোন আলামত পাওয়া যায়নি।

132 total views, 4 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018