নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে অসহায় আর্গনের পাশে ছাত্রলীগ নেতা অনিক - বিডি বুলেটিন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে অসহায় আর্গনের পাশে ছাত্রলীগ নেতা অনিক - বিডি বুলেটিন

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ০১:১৮ অপরাহ্ন

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে অসহায় আর্গনের পাশে ছাত্রলীগ নেতা অনিক

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে অসহায় আর্গনের পাশে ছাত্রলীগ নেতা অনিক

নজরুল ইসলাম জুয়েল:
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্র তুরস্ক রহমান আর্গন। পদ্মার পাড়ের ছেলে আর্গনের গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলায়। বাবা নেই, মা রহিমন বেগমের অভাবের সংসারে বেড়ে ওঠা তিন ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড় আর্গন। এক বোন উচ্চমাধ্যমিকে পড়াশোনা করছে আরেক বোন স্থানীয় স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।

পদ্মার সাথে যুদ্ধ করে এই অভাব অনটনের সংসারে আর্গনকে অনেক কষ্টে পাড়ি দিতে হয় এতটা পথ। বন্ধুবান্ধবের সাহায্য সহযোগিতায় পড়াশোনা চালিয়ে যান আর্গন। সবশেষ এক বন্ধুর সহযোগিতায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন ও ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করেন আর্গন। চান্স পাওয়ার পর তার দুশ্চিন্তা যেন আরও বেড়ে গেলো। কিভাবে চালাবে তার পড়াশোনা ও থাকা খাওয়ার খরচ।

কিছুদিন চরপাড়া(ময়মনসিংহ) একটা মেসে কয়েকজন বন্ধুর সাথে উঠে আর্গন। অর্থের অভাবে দিন কাটতে থাকে তার। এই কষ্ট ও হতাশায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) এক আবেগময়ী স্ট্যাটাস দেয় এই শিক্ষার্থী। সে তার স্ট্যাটাসে লেখেন, আমি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের (২০২০) একজন ছাত্র। আমি গরীব ঘরের সন্তান, এখানে আমার থাকা-খাওয়া, পড়াশোনার সকল খরচ বহন করা আমার পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নই। দুয়েকজন বড় ভাইকে টিউশনের কথা বলছি, যদি টিউশনি ব্যবস্থা না হয় তাহলে হয়তো আমার আর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া হবে না।

তার এই আবেগময়ী বার্তা চোখে আটকে পড়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক সভাপতি মোজাম্মেল হক অনিকের।

এই ছাত্রলীগ নেতা অনিক সাথে সাথেই আর্গনের সাথে যোগাযোগ করেন। তার সাথে কথা বলে ভরনপোষণের যাবতীয় সকল দায়িত্ব নেন এই ছাত্রলীগ নেতা। সেই থেকে আর্গন এই নেতার আশ্রয়েই আছে।

এই বিষয়ে আর্গনকে তার এখনকার অবস্থার কথা জিজ্ঞেস করাতে সে ছাত্রলীগ নেতা মোজাম্মেল হক অনিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। আমার বাবা নাই ,এখন যদি অনিক ভাই যদি আমার দায়িত্ব না নিত, তাহলে হয় তো আজ আমার ভার্সিটি পড়াশোনা বন্ধ করে বাড়ি চলে যেতে হতো । সেই সাথে আমার ভার্সিটি পড়াশোনা করা স্বপ্নটা ভেঙে যাই তো। সে কান্দা কন্ঠে আরো বলেন যে অনিক ভাইয়ের মতো মানুষই হয় না।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা মোজাম্মেল হক অনিক সাথে কথা বলে জানা যাই, আমি বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। সে সাথে আমি ছাত্রলীগ ভালবাসি সবসময় অসহায় মানুষে জন্য করতে পারা টা আমার জন্য বড় পাওয়া।

আমিও একজন মধ্যবৃত্ত ঘরের সন্তান। তার পরেও আমি যখন আর্গনে ফেসবুক পোস্ট টা দেখি আমি নিজে থেকে আর্গানে সাথে যোগাযোগ করি ও আমার নিজের বাসায় নিয়ে আসি থাকে। আমি আর্গানে সকল ভরণপোষণের দায়িত্ব ও পড়াশোনা সকল খরচ বহন করবো।

এই প্রতিবেদন সংগ্রহিত করতে গিয়ে আরও জানা যাই যে ছাত্রলীগ নেতা ইতি পূবে এক বৃদ্ধা মায়ের ভরোণপোষণের দায়িত্ব চালিয়ে যাচ্ছে ও নিয়মিত অসহায় গরিব মানুষে রক্তে ব্যবস্তা করে যাচ্ছে।

 777 total views,  4 views today

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018