বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাদেক হোসেন খোকা - বিডি বুলেটিন বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাদেক হোসেন খোকা - বিডি বুলেটিন

শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:১৫ অপরাহ্ন

বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাদেক হোসেন খোকা

বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাদেক হোসেন খোকা

রাজনীতি ডেক্স,,  খোকার জন্ম ১৯৫২ সালের ১২ মে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনোবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করেন তিনি। প্রথমে ছিলেন তিনি একজন গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা।  ১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

আশির দশকে বামপন্থী রাজনীতি ছেড়ে আসেন বিএনপিতে। ওই সময় নয়াবাজার নবাব ইউসুফ মার্কেটে বিএনপির কার্যালয় থেকে এরশাদবিরোধী আন্দোলনের সূচনা করে সাতদলীয় জোটের নেতৃত্ব দেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। ওই আন্দোলনে ঢাকা মহানগর সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্ব পেয়েছিলেন খোকা।

খোকার উল্লেখযোগ্য অবদানের মধ্যে একটি হচ্ছে ভারতে বাবরি মসজিদ ভাঙার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা রুখে দেওয়া। ১৯৯০ সালে যখন ভারতে এই ঘটনা ঘটে তখন সেখানে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা শুরু হয়। যার রেশ এসে বাংলাদেশে পড়ে। পুরান ঢাকায় হিন্দুদের বাড়িঘর, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলার চেষ্টা চলে। কিন্তু সে সময় খোকার প্রতিরোধ ও দৃঢ় নেতৃত্বে বড় ধরনের ঘটনা থেকে রক্ষা পায় বাংলাদেশ।

এমন ভূমিকা নিয়ে পুরান ঢাকাবাসীর আস্থা ও ভালোবাসা অর্জন করেন খোকা। যার প্রমাণ মেলে ১৯৯১ সালের জাতীয় নির্বাচনে। ঢাকা-৭ আসন থেকে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হয়ে আলোচনায় আসেন খোকা। এসময় তিনি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকাকালিন সময় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে সফলতার সাথে  দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

১৯৯৬ সালের নির্বাচনে ঢাকার আটটি আসনের মধ্যে সাতটিতে বিএনপি প্রার্থী পরাজিত হলেও তিনি নির্বাচিত হন। একই বছর খোকাকে মহানগর বিএনপির আহ্বায়কের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর ২০০১ সালের নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে মৎস্য ও পশু সম্পদমন্ত্রী হন তিনি।

২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের ১৪ মে সাদেক হোসেন খোকা চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র যান। এরপর থেকে সেখানেই ছিলেন তিনি। এ সময়কালে দেশে তার বিরুদ্ধে কয়েকটি দুর্নীতি মামলা হয়। এর কয়েকটিতে তাকে সাজাও দেওয়া হয়।

চলতি বছরের গত ১৮ অক্টোবর খোকার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাৎক্ষণিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সবশেষ ৪ নভেম্বর নিউইয়র্কে ম্যানহাটনের স্লোন ক্যাটরিং ক্যানসার সেন্টার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সাদেক হোসেন খোকা দীর্ঘদিন ধরে কিডনির ক্যানসারে ভুগছিলেন।

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান, অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার প্রথম নামাজে জানাজা সম্পন্ন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় (বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সকাল ৮টায়) নিউইয়কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে অনুষ্ঠিত জানাজায় ইমামতি করেন মাওলানা আবু জাফর বেগ।

জানাজায় বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করে কনসুলেটের ফার্স্ট সেক্রেটারি শামীম হোসেন। এসময় প্রবাসী বাংলাদেশিসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তিত্বসহ সর্বস্তরের প্রায় দুই হাজারেরও বেশি মানুষ জানাজায় অংশ নেয়।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ১১টায় জেএফকে বিমানবন্দর ত্যাগ করে খোকাকে বহনকারী এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটিতে  আসবে তার স্ত্রী ও সন্তানেরা। বাংলাদেশ সময়  বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সকাল ৮টা ১০ মিনিটে খোকার মরদেহ ঢাকায় পৌঁছান।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) বেলা ১১টায় জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় সাদেক হোসেন খোকার দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

একই দিনে মরহুমের লাশ সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হয়।

বাদ জোহর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে শেষবারের মতো আনা হয় সাদেক হোসেন খোকাকে। সেখানে মরহুমের তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

বিকেল ৩টায় ঢাকা সিটি করপোরেশনে নিয়ে যাওয়া হয় খোকার লাশ। সেখানে চতুর্থ নামাজে  জানাজা শেষে তার লাশ নিজ বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখান থেকে বাদ আসর ধুপখোলা মাঠে নিয়ে যাওয়া হয় খোকার মরদেহ। সেখানে পঞ্চম নামাজে জানাজা শেষে জুরাইন কবরস্থানে বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত  করা হয় এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে।

সোমবার (৪ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় দুপুর ১:৫০টায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাদেক হোসেন খোকা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018