বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ শুরু করলো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় - বিডি বুলেটিন বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ শুরু করলো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় - বিডি বুলেটিন

মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৪:৩৯ অপরাহ্ন

বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ শুরু করলো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ শুরু করলো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

শফিক মুন্সি ::

বিশ্বব্যাপী হানা দেওয়া নভেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বারবার হাত ধোঁয়া ও জীবাণুমুক্ত করার কথা বলা হচ্ছে। হাতকে পরিষ্কার ও জীবাণু মুক্ত রাখার জন্য বহুল ভাবে ব্যবহৃত হয় হ্যান্ড স্যানিটাইজার। কিন্তু বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস আক্রমণের পর থেকেই বাজারে সংকট দেখা দিয়েছে হ্যান্ড ওয়াশ ও স্যানিটাইজারের। তাই বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) শিক্ষার্থীরা নিজস্ব ফর্মুলায় বিনামূল্যে বিতরণের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন শুরু করেছে।

রবিবার ( ২২ মার্চ) বরিশালের শেরে বাংলা হাসপাতালের চিকিৎসক ও রোগিদের জন্য প্রথম স্যানিটাইজার তৈরি শুরু হয়।এসময় প্রতিটি ১০০ মি.লি. পরিমাণের শতাধিক বোতল স্যানিটাইজার তৈরি করেন তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও জীবপ্রযুক্তি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. রেহানা পারভিনের নেতৃত্বে তারই চারজন শিক্ষার্থীর একটি দল এগুলো তৈরি করেন। এতে আর্থিক সহযোগিতা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শিক্ষার্থীদের দলে ছিলেন, বিভাগটির ৩য় বর্ষের মোহাম্মদ তানভীর এবং ২য় বর্ষের শোয়েব সৈকত,রবিউল হাসান ও তাসনীম হোসেন।

স্যানিটাইজার তৈরির এমন উদ্যোগের ব্যাপারে ড. রেহানা পারভিন বলেন, ” করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিজেদের হাত পরিষ্কার রাখা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আর হাত পরিষ্কার রাখার ব্যাপারে ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি ও তাদের চিকিৎসকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা অতীব জরুরী। এ কথা মাথায় রেখে আমাদের উপাচার্য স্যারের ইচ্ছায় ও শিক্ষার্থীদের স্বেচ্ছাশ্রমে আমরা স্যানিটাইজার তৈরি শুরু করেছি “। তিনি আরো জানান, স্যানিটাইজারের কাঁচামাল প্রাপ্তিতে নানা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। জেলা প্রশাসন কিংবা অন্য মাধ্যমে কাঁচামালের আরো বেশি সরবরাহ যদি নিশ্চিত করা যায় তবে উৎপাদন বৃদ্ধি করা সম্ভব।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ছাদেকুল আরেফিন বলেন, ” বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস হানা দেবার ফলে আমরা এক মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয়েছি। এই বিপর্যয় প্রতিরোধে বরিশালের মানুষের জন্য আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। এই প্রচেষ্টার কলেবর আরো ব্যাপক করা যায় কিনা সে ব্যাপারেও আমরা ভাবছি”। তিনি জানান,বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে বন্ধ আছে। বন্ধ শেষে শিক্ষার্থীদের জন্যও স্যানিটাইজার উৎপাদনের প্রচেষ্টা চালানো হবে।

 318 total views,  9 views today

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © bdbulletin.com 2018